Bangla Movie Review: Kolkata Eid Special; Raj Chakroborty’s Proloy -A Calculated Cocktail of All the shades of Human Emotions.

4
215
New Kolkata Bangla Movie

Kolkata Tollywood Bengali actress Mimi

রাগ, দুঃখ, হতাশা, প্রতিবাদ, প্রতিরোধের এক আবেগঘন মিশেল নিয়েরাজ চক্রবর্তীর প্রথম মৌলিক বাংলা ছবিপ্রলয়এলো !!

প্রথমদিনেই ‘প্রলয়’ দেখতে ঢুকে পড়লাম ইন্দিরাতে কারন ঈদ উপলক্ষে আজ নন্দন বন্ধ ছিল । তবে ইন্দিরাতে ছবিটা না দেখলে আমি হয়তো সাধারন মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণীর দর্শক দের স্বতঃস্ফূর্ত প্রতিক্রিয়া-টা নিজের চোখে,কানে অনুভব করতে পারতাম না । এরা এমন এক শ্রেণীর দর্শক, যারা বাংলা ছবি দেখতে প্রিয়া, নন্দন অথবা ফেম-এ যাবেনা । প্রায় প্রত্যেকটি সংলাপে দর্শকদের উচ্ছ্বসিত করতালি জানান দিয়ে দিচ্ছিল যে রাজ চক্রবর্তী (Raj Chakraborty) বাংলা ছবির সাধারন দর্শকদের মনটা বেশ ভালো ভাবেই পড়তে পারেন । এই ছবি রাজের প্রথম ‘নিজের’ ছবি তাই এই ছবি নিশ্চয় রাজের জীবনে এক অন্যরকম তাৎপর্য বহন করবে। তিনি নিশ্চিত ভাবে চাইবেন যে ‘প্রলয়’কে বাংলা ছবির দর্শকরা সাদরে গ্রহন করুন, যাতে ভবিষ্যতে তাকে আর দক্ষিন ভারতীয় ছবির বাংলা সংস্করণ না পরিচালনা করতে হয় । প্রলয়ের প্রথম দিনের সাফল্য রাজ-কে বেশ তৃপ্তি দেবে, এটা আশা করাই যায় ।

director of new Bangla movie Proloy

পদ্মনাভ দাশগুপ্ত (Padmanabha Dasgupta) ‘লে ছক্কার’ এই দ্বিতীয়বার রাজ চক্রবর্তী -র ছবির জন্যে চিত্রনাট্য এবং সংলাপ লিখলেন আর এবারের ফল আগের বারের মতন হবেনা বলেই আমার মনে হয় কারন ‘বরুন বিশ্বাস ‘-এর জীবনীর মধ্যে এমন এক আলাদা ‘টান’ আছে যা দর্শদের মনকে সিনেমা হলে নিয়ে গিয়ে বসাবেই। এই ছবির চরিত্রায়ন গুলি নিয়ে কিছু কথা বলা প্রয়োজন কারন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, পরান বন্দ্যোপাধ্যায়,শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়, মিমি চক্রবর্তী এবং রুদ্নণীল ঘোষ-কে নিয়ে রাজ চক্রবর্তী এমন এক টিম তৈরি করেছিলেন এই ছবির জন্যে, যে টিম ‘প্রলয়’-কে বাড়তি অক্সিজেন যুগিয়েছে ।

ভারত – বাংলাদেশ বর্ডার সীমানার কাছে অবস্থিত ‘দুখিয়া ‘ গ্রামে অবাধে চলে রাজনৈতিক মদত পুষ্ট দুষ্কৃতি দলের রাজত্ব । গ্রামের মহিলাদের গনধর্ষণ করা হচ্ছে এই দুষ্কৃতি দলের প্রিয় খেলা, এই জঘন্য অপকর্মের মূল পাণ্ডা হচ্ছে অঞ্চলের M.L.A -র ছোট ভাই প্রশান্ত মণ্ডল (Rudranil Ghosh)। এই দল যখন গ্রামের মহিলাদের জীবন বিষময় করে তোলে তখন প্রতিবাদ ধেয়ে আসে গ্রামের শিক্ষিত যুবক বরুন বিশ্বাস (Parambrata Chatterjee), যে কলকাতার Mitra Insitution School-এর শিক্ষক । গ্রামের গরিব মানুষের পাশে দাঁড়াতে বরুন তৈরি করে ‘জনগনের মঞ্চ’ এবং গ্রামের অধিকাংশ সংবেদনশীল মানুষ বরুনের তৈরি করা ‘জনগনের মঞ্চে’ যোগদান করে। বরুনকে উচিৎ শিক্ষা দিতে প্রশান্ত ও তার দল ধর্ষণ করে বরুনের বান্ধবী দুর্গা (Mimi Chakraborty)-কে । কিন্তু তাতেও বরুনের আত্মবিশ্বাসে চিড় তো ধরানো যায়েই না, উপরন্তু রাজ্যপালকে চিঠি লিখে বরুন প্রশান্ত ও তার দলকে গ্রেফতার করিয়ে দেয়। জেলের মধ্যে থেকেই ষড়যন্ত্র করে প্রশান্ত গ্রামের দুজন ছেলেকে টাকা দিয়ে ভাড়া করে বরুন বিশ্বাসকে খুন করায়। বরুনের মৃত্যুর পরে তার যুদ্ধ নেতৃত্বকে নিজের কাঁধে স্বেচ্ছায় তুলে নেন তার স্কুলের সহকর্মী বিনোদ বিহারী দত্ত (Paran Bandopadhyay), তাকে এই যুদ্ধে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে বরুনের দাদা অরুন (Padmanabha Dasgupta), দুর্গা এবং জনগণের মঞ্চের সদস্যরা । এই সময় গ্রামে এসে হাজির হন Special Branch er IPS officer অনিমেশ দত্ত (Saswata Chatterjee), এই পুলিস অফিসরটি আবার নিজেই এক গোলক ধাঁধার সামিল। কখন সে প্রশান্তর মুখের উপর প্রস্বাব করে দেয়, আবার কখন আবার সেই এক-ই মানুষ প্রশান্তদের ভাড়া করা নর্তকীর সঙ্গে কোমর দুলিয়ে নাচে। সঠিক বোঝা যায়না এই নতুন পুলিস অফিসর আসলে কি চাইছেন ? কাদের দলে আছেন তিনি?

New Kolkata Bangla Movie hero Saswata

এরপর কি হয়? বরুন বিশ্বাসের ‘ বিশ্বাস’ কি শেষ পর্যন্ত বেঁচে থাকে দুখিয়ার মানুষের মনের মধ্যে? প্রশান্ত ও তার দলবলের কি শাস্তি হয়? এই উত্তর গুলি পেতে আপনাদের দেখতে হবে রাজ চক্রবর্তীর নতুন ছবি ‘ প্রলয় ‘। বলেBodhaditya Banerjee-র সম্পাদনার কাজ আমার বেশ ভালো লেগেছে । Indraadip Dasgupta-র সঙ্গীত একদম ছবির উপযোগী হয়েছে । আমার ব্যক্তিগত ভাবে পছন্দ হয়েছে ‘ রোশনির গান ‘ এবং  ‘ ঘুম ভাঙানোর গান ‘। গায়কSinger Arijit Singh যেভাবে মুম্বই – বাংলা সামলাচ্ছেন, সেটা সত্যি তারিফযোগ্য । Subhanar Dhar-এর ক্যামেরার কাজ মোটামুটি ধরনের, আরও ভালো কাজ দেখানো সুযোগ ছিল তার । Pooja Bose-র item dance টা এই ছবিতে না থাকলেই বোধয় ঠিক হতো । কাহিনীর ওই সময় গানটি বড্ড বেমানান লেগেছে, যদিও ওই নাচের পরেই একটা ঘটনা ঘটে ছবিতে, তাও আমার দৃশ্যায়নটি বেশ খাপছাড়া লেগেছে। যেমন লেগেছে climax scene -টি যেখানে প্রশান্ত খুন হয়ে যাচ্ছে বিনোদ বিহারী দত্তের হাতে । একটি বৃদ্ধ মানুষের মনের জোর থাকতে পারে কিন্তু অমন আসুরিক শারীরিক ক্ষমতা তার কিভাবে এলো ? এই প্রশ্ন আমার মনে এসেছে, cinematic liberty-র কথা মাথায় রেখেও কারন প্রলয় কে আমার otherwise বেশ realistic ছবি বলে মনে হয়েছে ।

জমিয়ে অভিনয় করেছেন পরান বন্দ্যোপাধ্যায়, যাকে রাজ চক্রবর্তী আদর করে ডেকে থাকেন as “BIG B of Tollywood” !!! Barun Biswas-র author backed চরিত্রে -এ পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় (Parambrata Chatterjee) প্রায় নিখুঁত, অত্যন্ত সংযমী অথেচ আত্মবিশ্বাসী তার অভিনয় । যতদিন যাচ্ছে পরম উন্নতি করছেন । একটি বুম্বাদা / Prosenjit Chatterjee মার্কা চরিত্রে শাস্বত চট্টোপাধ্যায় প্রমান করে দিলেন আবার যে তিনি মোটামুটি সব ধরনের চরিত্রেই ভালো অভিনয় করার ক্ষমতা রাখেন । ‘Refugee’, ‘থানা থেকে আসছি ‘ র- পরে আরেকবার খলনায়ক চরিত্রে অভিনয় করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন রুদ্র (Rudranil Ghosh)। তার প্রত্যেকটি বলা plus না-বলা সংলাপ, অঙ্গ-ভঙ্গি তে দর্শকরা শিউড়ে উঠেছেন, এতটাই realistic অভিনয় করেছেন এই versatile অভিনেতা । মিমি (Mimi Chakraborty) দুর্গা চরিত্রে ভালো ভাবেই উতরে গেছেন, যদিও আরেকটু maturity আনতে পারলে চরিত্র টি হয়তো বেশি খুলত ।

Venkatesh Films -এর প্রযোজনায় এই ছবি সাধারন দর্শকের হৃদয় স্পর্শ করবেই কারন বরুন বিশ্বাসের প্রত্যেকটি সংলাপ যেন সংবেদনশীল মানুষের অন্তরাত্মার কথা । কিন্তু এই ছবির শেষে পৌঁছে আমার মনে এক সংশয় উঁকি দেয় … সামাজিক অপরাধের মোকাবিলায় কোন পথ অবলম্বন করাটা উচিৎ ? বরুন বিশ্বাসের দেখানো পথ নাকি সেই পথ যেটা বিনোদ বিহারী দত্ত কে শেষ পর্যন্ত বেছে নিতেই হল? এতে কি বরুন বিশ্বাসের জয় হল? কারন এই পথ তো সে আগেই নিতে পারতো ! অথেচ সে তো তা নেয়নি । যাই হোক এই তর্ক চিরন্তন চলতেই থাকবে । এই সংশয়ে ‘প্রলয়’-এর জনপ্রিয়তায় ভাঁটা পড়বে বলে আমার মনে হয়না । কারন দর্শক তো দুষ্টের দমন দেখতেই ভালোবাসেন, এটা রাজ চক্রবর্তী খুব ভালো করেই জানেন ।

Photographs By: Amitav Sarkar

Bangla Movie Review by:
Sanjib BanerjiSanjeeb Banerji takes a keen interest in both Old and Contemporary/modern Bengali literature and cinema and have written several short stories for Bengali Little magazines. He also runs a little magazine in Bangla, named – Haat Nispish, which has completed its 6th consecutive year in the last Kolkata International Book Fair. Being the eldest grandson of Late Sukumar Bandopadhaya, who was the owner of HNC Productions and an eminent film producer cum distributor of his time (made platinum blockbusters with Uttam Kumar, like “Prithibi Aamarey Chaaye”, “Indrani” and several others), Sanjib always nurtured an inherent aspiration of making it big and worthy in the reel arena. He has already written few screenplays for ETV BANGLA.

Sanjib can be reached at sanjib@sholoanabangaliana.com

4 COMMENTS

  1. dada sholoana site theke apnar proloy niye lekha ta porlam.apnar lekha porley bojha jay,j ata kono flimmaker or storyteller, emon karor lekha, sobsamoy akta question thakbey. jata apnara korte paren,
    sata amra pari na, mane daara hoye ute na oi question ta kora.valo hoyeche. sob flimmaker/storyteller etc jeshob bishisto lok aache,sobai akta road diye haten.mone hoy atay tader root map

LEAVE A REPLY

Please enter your name here
Please enter your comment!