New Kolkata Bengali Movie Review: Bakita Byktigato; Srijit Mukherji supports a Good Film

1
252
new kolkata bengali movie bakita byaktigoto

 New kolkata bengali movie

কখনো বাস্তব-টাই যদি ভ্রম বলে বোধ হয়  ভ্রমটাই এবং মনের বাস্তবতা হয়ে ওঠে? একেই বোধয় বলা হয় “Magic Realism” অথবা অতিবাস্তবতা।  নীললোহিতের কথা মনে পড়ে যাচ্ছে কি? সেই পাঞ্জাবী ও জিন্স পরিহিত ভবঘুরে, রোম্যান্টিক যুবক, যে কিনা নিজের জীবনের সাতাশটা বছর কাটিয়ে দিলো কোন এক দিকশূন্যপুরের খোঁজে ?  দিকশূন্যপুর নামে সত্যি কি কোন গ্রাম আছে? নাকি পুরোটাই সেই সাতাশ বছরের ভবঘুরে যুবকের এলোমেলো, রোম্যান্টিক মনের কল্প-ভ্রম? আমাদের সবারই মনের কোন এক গোপন কোনে বোধয় বাস করে একজন নীললোহিত, যে মাঝে মাঝেই আমাদের ভাবুক মনকে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে সেই দিকশূন্যপুরের উদ্দেশে! আমরা তো ভালোবাসতে ভালোবাসি এবং প্রেমের থেকে বড় adventure অন্য কিছু আছে নাকি?

kolkata bengali singer anupam roy

এমনই এক অলীক অথচ গভীর চিন্তাসূত্র থেকে এই ছবির উদ্ভব !!! ছবিটা দেখে মনে হল পরিচালক প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য-ও (Pradipta Bhattacharya) নিশ্চয় এমন এক এলোমেলো, ভবঘুরে, প্রেমিক মনের অধিকারী, নচেৎ এমন একটা মিষ্টি প্রেমের গপ্পো ভাবতে পারতেন না! আপনাদের জন্যে গল্পটা বরং একটু ছোট করে বলে দিই এখানে …

উদিয়মান তথ্যচিত্র পরিচালক প্রমিত রায়ের জীবনে প্রেমের বড্ড অভাব। বলা ভালো,তার কোন প্রেম-ই টেকে না !!! আস্তে আস্তে প্রমিতের নিজের মনেই সন্দেহ জন্মে যায় যে সে বোধয় প্রেমের প্রকৃত অর্থ-টাই বোঝে না আর তাই প্রেম করতেও পারেনা। এমন সন্দেহ মাথায় আসার পরে প্রমিত শুরু করে তার নতুন তথ্যচিত্র ‘প্রেমের খোঁজে’। যে তথ্যচিত্রে সে তুলে ধরতে চেষ্টা করে বর্তমান সামাজিক প্রেক্ষাপটের পটভূমিতে বিভিন্ন ধরনের প্রেমের চালচিত্র। এই কাজে প্রমিতকে সাহায্য করে তার বন্ধু তথা ক্যামেরাম্যান অমিত। নানান চরিত্রের প্রেম সংক্রান্ত নানান অদ্ভুত অভিমত জানতে জানতে প্রমিত হঠাৎ দেখা পেয়ে যায় হরিমাধব নামক এক ভণ্ড জ্যোতিষীর, যিনি তাকে সন্ধান বলে দেন এমন এক গ্রামের, যেখানে গেলেই যে কোনো ধরনের, বয়সের মানুষ প্রেমে পড়ে যাবেই। হরিমাধবের মাধ্যমেই প্রমিত দেখা পেয়ে যায় এমন কয়েকজন মানুষের, যারা ওই গ্রামে গিয়ে তাদের জীবনের নতুন মানে খুঁজে পেয়েছে, এমন প্রেম খুঁজে পেয়েছেন, যা তাদের সঙ্গী রূপে রয়ে গেছে সারাজীবন। গ্রামের নামটিও বেশ রহস্যময় “মোহিনী”। এমন গ্রামের খবর পেয়ে প্রমিত এবং অমিত তাদের ক্যমেরা নিয়ে অবিলম্বে রওনা দেয় “মোহিনীর” উদ্দেশে। এরপরের গল্পটা আর এখানে লিখছি না! “বাকিটা ব্যক্তিগত” (Bakita Byktigato) সত্যি সত্যি বেশ খানিকটা ভাবালো! ধন্যবাদ প্রদীপ্তকে এতোটা ভাবনার রসদ যোগানর জন্যে। এতো কম বাজেটে এমন একটি সুন্দর প্রযোজনা করার জন্যে Tripod Entertainment Private Limited এবং Srijit Mukherji -কে সাধুবাদ জানাই।

এই ছবির সেরা সম্পদ হচ্ছে চিত্রগ্রহন/Cinematography। এই বিভাগে চিত্রগ্রাহক/Director of Photography শুভঙ্কর ভড় (Subhankar Bhar) অসামান্য দক্ষতার সঙ্গে নিজের কাজটি সম্পন্ন করেছেন। ক্যামেরাও যেন এই ছবিতে একটি স্বতন্ত্র চরিত্র। একটি বাচ্চা ছেলের মতন সেটি ছবির মূল চরিত্র গুলির সঙ্গে লুকোচুরি খেলা খেলেছে। শুভঙ্কর গতানুগতিক cinematic চিত্রগ্রহনের ধারাপাতের নির্ধারিত গণ্ডির বাইরে বেরিয়ে নিয়ম ভাঙার খেলায় মেতে দর্শকদেরও মন্ত্রমুগ্ধ করে রেখেছেন। এই ছবির editing এতটাই টানটান এবং crisp যে আনুমানিক ২ ঘণ্টা ২০ মিনিট ( Duration: 2 hours & 20 minutes duration approx) এর ছবি হয়েও, “বাকিটা ব্যক্তিগত” কিন্তু দর্শকদের কাছে বিরক্তির কারন হয়ে ওঠেনি। ছবির পরিচালনা, চিত্রনাট্য, সংলাপ রচনা এবং সম্পাদনা এই চার বিভাগেই প্রদীপ্ত তার বিরল প্রতিভার সাক্ষর রেখেছেন।

অভিনেতা/অভিনেত্রীরা প্রত্যেকেই তাদের জন্য নির্ধারণ করা চরিত্রের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে তাদের কাজ করে গেছেন। আলাদা ভাবে বলতেই হবে এই ছবির নায়ক ঋত্বিক চক্রবর্তীর (Ritwick Chakraborty) কথা। প্রমিত চরিত্রে ঋত্বিকের অনন্য অভিনয়ের জন্যই “বাকিটা ব্যক্তিগত” (Bakita Byektigoto) ছবিটি বারবার দেখা যেতেই পারে। ঋত্বিক চক্রবর্তী নিঃসন্দেহে বর্তমান সময়ের একজন অন্যতম সেরা অভিনেতা। বাংলা ছবির বর্তমান এবং আগামীদিনের পরিচালকদের কাছে আমার অনুরোধ, এমন এক বিরল প্রতিভাধর অভিনেতাকে উপযুক্ত সুযোগ করে দিন, যাতে আমরা ঋত্বিককে আরও বেশি করে বাংলা ছবির পর্দায় দেখতে পাই। ঋত্বিক (Ritwik Chakraborty) ছাড়াও দেবেশ রায়চৌধুরী (Debesh Roychoudhury), চুর্নী গঙ্গোপাধ্যায় (Churni Ganguly), সুপ্রিয় দত্ত (Supriyo Dutta),অপরাজিতা ঘোষ দাস (Aparajeeta Ghosh Das) এবং নবাগত অমিত (Amit) সবাই খুব ভালো কাজ করেছেন। এই ছবির কিছু কলাকুশলী একেবারে মাটির মিঠে,সোঁদা গন্ধ গায়ে মেখে রাতারাতি গ্রামের মাটি থেকে উঠে এসেছেন, তাই তাদের কাজের সমলোচনা করতে যাওয়া উচিৎ নয়। শুধু আশা রাখলাম এমন কাজ বাংলা ছবিতে আরো বেশি করে হবে এবং দর্শকদের মনের গভীর কোন থেকে কোন থেকে উঁকি দিয়ে যাবে এক-একজন ঘুমিয়ে থাকা নীললোহিত। এই ছবির গান সাম্প্রতিক সমস্ত বাংলা ছবির গানকে ছাপিয়ে গেছে। ধন্যবাদ জানাই ছবির পরিচালক প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য এবং সঙ্গীত পরিচালক তথা গায়ক অনিন্দ্যসুন্দর চক্রবর্তীকে (Anindya Sundar Chakraborty) আমাদের হৃদয়কে মাটির কাছাকাছি নিয়ে যাওয়ার জন্যে।

Surrealism and Romanticism worked hand in hand to make the movie abstract yet hard hitting for the educated urban audience.

 


Bakita Byaktigato  (You Tube)

New Kolkata Bengali Movie Review By:
SanjibSanjib Banerji takes keen interest in both Old and Contemporary/modern Bengali literature and cinema and have written several short stories for Bengali Little magazines. He also runs a little magazine in Bangla, named – Haat Nispish, which has completed its 6th consecutive year in the last Kolkata International Book Fair. Being the eldest grandson of Late Sukumar Bandopadhaya, who was the owner of HNC Productions and an eminent film producer cum distributor of his time (made platinum blockbusters with Uttam Kumar, like “Prithibi Aamarey Chaaye”, “Indrani” and several others), Sanjib always nurtured an inherent aspiration of making it big and worthy in the reel arena. He has already written few screenplays for ETV BANGLA.

 

Enhanced by Zemanta

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your name here
Please enter your comment!