Jatishwar Music Review; A Fan’s Letter to Kabir Suman Congratulating the Effort and Presentation

2
120
Jatishwar Premier

jatishwar musicমান্যবরেষু

কবীর সুমন মহাশয়,

আশা করি এই মুহুর্তে আপনি নিশ্চয়ই অবগত যে পরিচালক সৃজিত মুখার্জির মন কেমন করা বাংলা ছবি ‘জাতিস্মর’ –এ বুঁদ আম-বাঙ্গালি। কিন্তু বাঙালি তথা আমাদের কাছে আসল জাতিস্মর তো আপনি। অত্যাধুনিক যন্ত্রানুসঙ্গ এবং  অ্যামপ্লিফায়ার-এর গর্জনের চোটে বিলুপ্ত প্রায় পুরাতনী বাংলা তর্জমা গান এবং ফেলে আসা জন্ম-পূর্বক ঊনিশ শতককে সুরের স্মৃতি মেদুরতায় তা সত্যিই কুর্নিশ যোগ্য। ‘জাতিস্মর’ ছবিতে ব্যবহৃত বাংলা গানের বিবর্তনী কোলাজে আট থেকে আশি আজ মন্ত্রমুগ্ধ। প্রায় দেড়শ বছর-এর পুরনো বাংলার কবি গান থেকে কালী কির্ত্তন, পদাবলী কির্তন; পোর্তুগিজ ফোক থেকে লালন গীতি; বাংলা আধুনিক জীবন মুখী থেকে বাংলা ব্যান্ড, বাংলা রক – আবহমান কাল ধরে চর্চিত বঙ্গীয় সুর-সংগীতের যে বিস্তৃত চালচিত্র ফুটে উঠেছে তা কন অংশেই পরিপূর্ণ নয়। তবে ছবির সাঙ্গীতিক জয় যাত্রার মুখ্য ও আংশিক কান্দারী আজ আপনিই।

মোট ২১ টি গান সমৃদ্ধ ‘জাতিস্মর’ নাম্নী ছবির উপশিরোনাম ‘আ মিউজিক্যাল অফ মেমরিজ’। সত্যিই সুর ও স্মৃতির গভীর একাত্মতা, যেখানে প্রতিটা গানই সংযোজন করে আলাদা মাত্রা।

ছবিতে অ্যান্টনি কবিয়ালের গান ছাড়াও ব্যবহৃত হয়েছে হরু ঠাকুর, ভোলা ময়রা, ঠাকুর সিংহ, এবং মহিলা কবিয়াল যজ্ঞেশ্বরীর কবি গান; পল্লী গীতি লালন ফকির, পোর্তুগিজ ফোক;  আধুনিক বাংলা জীবন মুখি গানে রয়েছে আপনার স্বাক্ষর; তাছাড়া সমকালীন ব্যান্ড পর্জায়ে রয়েছে অনুপম রায় এবং বাংলা রক-এ সিধু-সাকি।

 এই ছবির প্রতিটা গান ব্যবহৃত হয়েছে প্র্য়োজনার্থে। অ্যান্টনি ফিরিঙ্গির কণ্ঠে শ্রীকান্ত আচার্জ–র কণ্ঠ মোটের ওপর মানানসই। ‘জয় যোগেন্দ্র জায়া মহামায়া’ গানটির আধ্যাত্মিক সুরের দূর্গা বন্দনার ভঙ্গি, যা মনে পবিত্রতার সঞ্চার করে। সেই সঙ্গেই শ্রীকান্তের কণ্ঠে শ্যামা সঙ্গীত ঘরানায় ‘কী রঙ্গ দেখাবি তুই মা’ একটি সুন্দর কালী কির্তন হয়েছে। সুমন মুখোপাধ্যায়ের কণ্ঠে ‘আগে যদি সখী জানিতেম’ গানটি একটি উৎকৃষ্ট পদাবলী কীর্তনের পরিচয়। এই পর্বেই রাখা যায় কীর্তনীয়া ঢঙ্গে শ্রমণা চক্রবর্তী্র কণ্ঠে যজ্ঞেশ্বরীর ‘হলে যদি হল সখা অধিষ্ঠান’ গানটিকে। এছাড়াও বিশেষ উল্লেখ্য ‘যে শক্তি হইতে উৎপত্তি’, ‘প্রেমে খান্ত হলেম প্রান’, ‘খ্রিষ্টে আর কৃষ্টে’, ‘প্রান তুমি’ এই গান গুলির কথা ও সুর। তাছাড়া আপনার কণ্ঠে ‘বল হে অ্যান্টনি’ তে কীর্ত ন ও আখড়াই- এর মিশেল, মনোময় ভট্টাচার্জের কণ্ঠে ‘এখন বুঝলি তো এই হরু নয় সেই হরি’ গানে কন্সার্ট ভঙ্গী মনে রাখার মত। খরাজ মুখোপাধ্যায়ের কণ্ঠে ‘তুই জাত ফিরিঙ্গী’ গানটিকেও নতুন ভাবে পাওয়া গেল। পল্লীগীতি প র্‍্যায় দিব্যেন্দু মুখোপাধ্যায়ের  পোর্তুগিজ গানটি বেশ সুন্দর, পাশাপাশি কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্জের গাওয়া লালন ফকির-এর ‘জাত গেল জাত গেল বলে’ গান টিও মাটির টান কে অনুভব করায়। আধুনিক গানে আপনার লেখা তিন মাত্রার মার্চিং টিউনে ‘সহসা এলে কী’ গানটা বেশ শ্রুতি শ্রাব্য। তবে এ তুমি কেমন তুমি গানটিও আপনার কণ্ঠে আগে ব হুবার শুনেছি, তবে রূপঙ্করের সুমধুর কণ্ঠেই গানটা বেশী ভাল লাগল। জীবনমুখী প র্‍্যায় আপনার গাওয়া ‘প্রথম আলোয় ফেরা’ গান টি মধ্যযুগীয় ব্যালাড গানের কথা মনে করায়। সমকালীন ব্যান্ড পর্বে অনুপম রায়ের ‘দ্বিতীয় পুরুষ’ অ্যালবামের ‘ফাঁকা ফ্রেম’, সমকালীন বাংলা রক প র্‍্যায়ে সিধুর ‘সিংহ রাশি রাক্ষস গন’ এবং সাকির ‘বল কোনটা প্রিয়’ সমকালীন যুব সম্প্রদায়ের সঙ্গীত প্রীতির ভাবগতির পরিচয় দেয়।

তবে একটা কথা না বলে পারছি না, আপনার যে গানটিকে ভিত্তি করে এত সুন্দর সিনেমাটির নির্মান সেই ‘জাতিস্মর’ গানটিকে ছবির শেষে ব্যবহার করায় গানটির গুরুত্ব খানিকটা হলেও কমে গেছে সাধারন দর্শকের কাছে।

পরিশেষে বলি, তর্জমা বাণী চয়নে সৃজিত মুখার্জি যতটা সার্থক ততটাই সার্থক তার সঙ্গীত পরিচালক হিসাবে আপনাকে নির্বাচনের ভাবনা। ‘জাতিস্মর’-এর মত নতুন ভাবনার বাংলা ছবি আরও হোক, তার সঙ্গে অমর হোক বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে আপনার অবদান।

শুভেচ্ছান্তে,

প্রীতম পাল

Pritam Pal

Jatishwar Music Review has been written in the form of a letter by Pritam Pal to the music composer of the Film Kabir Suman whose song Jatishwar was also the inspiration behind Director Srijit Mukherji’s epic musical Jatishwar. Pritam who is a journalist by profession also takes keen interest in listening to and analyzing different genres of music and critically reviewing them.

Enhanced by Zemanta

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your name here
Please enter your comment!