Saluting the Power of a Woman on International Mother’s Day; (Sholoana Bangaliana Special Feature)

3
119

একই দুগ্গী দেখি দাদা!!!

ঢ্যাং কুর কুর … ইস। ঢ্যাং কুর কুর আবার বাজল, ঢ্যাং কুর কুর এবার শব্দটা ক্রমাগত বেজেই চলল, একবার এই জানলায় তো ক্ষণিক পরে ওই জানলায়, জানলাগুলো বড্ড ছোট, বড্ড উচু, ঠিক পায়রার খুপরির মত। নাজমিন তাই তাই পা টা উচু করে যথাসম্ভব দেখার চেষ্টা করল। তবে দেখতে পেল না কিছুই। কিন্তু আওয়াজটা অনবরত হচ্ছে। একসময় হঠাৎই শুনতে পেল চাচার ডাক, “কি বেটি, এখনও আয়েস করা হল না বুঝি?” নাজমিনের সম্বিত আসায় একছুটে সে বেরিয়ে গেল ঘোর থেকে একটা ভাঙ্গা থালা নিয়ে। কান থেকে ঢাকের আওয়াজটা বেরিয়ে গেল।Mothers Day

নাজমিনের ঠিকানাটা আবার “কেয়ার অব ফুটপাথ” অন্যান্য দিনের মতই দোমড়ানো মোচড়ানো একটা স্টিলের থালা হাতে, মুখে এক অস্ফুট স্বর, “বাবু কিছু দিবেন?” অনেক কষ্টেই এই বাংলাটা শিখেছে সে। পড়াশুনো তো পুরোটাই উর্দু আর ইংরেজিতে তাঁর।

এই সদ্য কৈশোরে পদার্পণ করা নাজমিন বেশ অল্পদিনেই নিজের কদরটা বুঝিয়েছিল আন্না চাচাকে। তাই যতই আয়েস-এ কাতাক না কেন, আন্না তাকে দল থেকে তাড়াবে না। এখন প্রায় ৬ মাস হল, নাজমিন কলকাতার ফুতপাতে। বড্ড ফুটফুটে মেয়েটা, তাই সহকর্মীদের থেকে ভালোই বেশি কামায় মেয়েটা, ফলে আন্নার আয়টাও বেশি হয়। এজন্য পল্টু-বিল্টু-আশা রা তাকে বেশ হিংসেই করে, যদিও বয়সে একটু বলে বাকিরা কোনও মন্তব্য করে না।

সকাল ৮ টা থেকে রাত ১০ টার এই ১৪ ঘণ্টার লিস্ট – এ মাত্র ১ ঘণ্টার বিরতি, তাও আবার কিস্তিতে। আর এই ১৪ ঘণ্টার পর নাজমিন অন্যান্যদের মতই ক্লান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়ে কিন্তু আজ অন্যরকম হল। চালায় ফিরে তার ঘুম হল না, তন্দ্রার মাঝে মাঝেই শুনতে পেল ঢ্যাং কুর কুর… ঢ্যাং কুর কুর…।

পেশোয়ার থেকে ক্যুরিয়ার-এ সোজা কল্কাতাতেই আসে নাজমিন। তখন সে জানেই না যে এটা ভারতবর্ষ। এক সময় তার দেশও এর মধ্যেই ছিল। বই – এ পড়েছে অনেকবার, আর সেই তখন থেকেই সে এই কলকাতার পথে পথে ভিক্ষা করে বেড়ায়। খুব অদ্ভুত মনে হয় তার এই বদলটাকে। বাবা-মা, বাড়ি, বন্ধু-বান্ধবদের মুখগুলো ভেসে বেড়ায়। তখন খুব কেঁদেছিল বছর ১২ -এর এই মেয়েটা। খুব বিচলিত অপলক দৃষ্টিতে সে তার অভিশপ্ত নগরীকে দেখত, কিন্তু আজকের এই ধাকের বোল তার জীবনের সবচেয়ে কঠিন অস্থিরতার জন্ম দিয়েছে। মহালয়ার দিন পল্টু-বিল্টুরা হাফ টাইম করলেও নাজমিনের ১৪ ঘণ্টায় আপত্তি ছিল না কারন সে মহালয়া জানে না, জানে না দেবীপক্ষ, এমনকি চেনে না দশভূজা দুর্গাকেও, তবুও তার এই ফুটফুটে চাহনি অস্ফুট স্বরে বলে ওঠে ঢ্যাং কুর কুর… ঢ্যাং কুর কুর… ঢ্যাং কুর কুর…

–সমাপ্ত–

Subhasree Biswas

Subhasree Biswas is pursuing her Masters Degree in Mass Communication from Rabindra Bharati University, Kolkata. She is a part time model, anchor person and also takes keen interest in performing arts. Previously, She has worked as freelance content writer (Bengali) for a leading Bangla web magazine. Subhasree has hosted events as MOC for leading Brands like ABP and DELL.

Image Credits: Google Images

3 COMMENTS

  1. কিছু আবেগ, কিছু ভাব-মুরতির বহিরপ্রকাস করার কিছু ধরন থাকে। এই ধরন তা বেস ছুতে পারার মতই। মদ্দা কথা হল বক্তব্যটা যেন মনের অন্তর থেকে মনের মনের অন্তরের গভিরে পউছই।

  2. fottpath-r nazmin-ra jeno harie na jay… setae lakshya hok sobar… alpo kothay onek kichu bola… 16 aanae bangaliana… spl thnks to writer…

LEAVE A REPLY

Please enter your name here
Please enter your comment!