Tag: Ajay Devgan

Press Conference of Bilingual Film Policewala Returns


Video: Press Conference of Policewala Returns

Soma Mittal, the producer of upcoming bilingual movie Policewala Returns announced this project at a press conference. Present at the press conference was producer Soma Mittal, Partha Sarathi, music director Dev Sen, singers Vicky, Prosenjit and others. The event took place at Princeton Club.

Policewala-returns-press-conference

“I play the role of a police officer and Ajay Devgan is playing the role of the Commissioner of Police. Dev is playing the role of a gangster. The film has already completed 7 days of shooting in Mumbai, for Ajay Devgn’s part. He completed the shooting for his part as he will become busy with his film Shivaay” said Soma Mittal.

Upcoming-film-Policewala-Returns

Speaking about the music of the film, composer Dev Sen said “Not much work done with fusion music in Kolkata. I have tried to experiment therefore. Since this is a bilingual film, there are songs in Hindi and Bengali. Singers like Vicky, Prosenjit will be singing the songs. I am also trying to bring in Shreya Ghoshal and Arijit Singh to sing the songs of this film. Let’s see!!”

The film stars Ajay Devgan, Nana Patekar, Juhi Chawla, Supriyo Dutta, Bharat Kaul, Parthasarathi and Dev in pivotal roles.

The film is slated for release on 25th December this year.

Priyanka Dutta

Connect with us on Facebook at: https://www.facebook.com/sholoanabangaliana?ref=hl

Our You Tube Channel: https://www.youtube.com/channel/UC2nKhJo7Qd_riZIKxRO_RoA

Our Twitter Handle: @Sholoana1

Google+ ID: +Sholoana

Interview: Tollywood Hero Aryan D. Roy – The Model, Actor and Engineer shares the secret of the Great Balancing Act

Click Play to Listen to Aryan D. Roy talk about his new Bangla movie Sada Kalo Abcha and his way ahead

 

Tollywood Hero Aryan D. Roy

 

Director Riingo’s new movie Sada Kalo Abcha is all set to release and just before the movie hits the theaters introducing some very promising debutants and a fantastic new genre of film making, Sholoana Bangaliana caught up with Tollywood Hero Aryan D. Roy who is debuting with this movie and got to know a lot about Aryan’s journey into cinema and his way ahead: Excerpts –

 

 Sholoana Bangaliana: Please tell us something about your growing up years, education and journey into the glamour world..

Aryan: I have done my schooling from St. Xaviers Durgapur and in school I was always very popular as I was into sports as well as a lot of other extra-curricular activities. I was first introduced to the world of dance and music by my mother who was a Dance teacher and under her tutelage I have done a lot of dance dramas and participated in a lot of cultural programs. As far as my interest in sports is concerned I was very passionate about football and always wanted to play for Manchester United. So till my Junior College years I was in Durgapur and shifted to Kolkata only when I came down to study Mechanical Engineering in Shibpur B.E. College.

 

Sholoana Bangaliana: You are an engineer by profession and a model and an actor too. So how and why did you get into modeling and acting after having pursued engineering?

Aryan: Well, honestly studies were always a pain but having said that I would also stress upon the fact that education is very important and it is your education that helps when you want to try out different things in life as life is also a math and you need to be sharp at logical reasoning to be successful and accomplish your dreams. It is not that I had always wanted to be an actor but yes just because I had that natural flair for dance and stage performances I always wanted to give acting a try. So, I planned my way and started modeling and did quite a few ad shoots for various brands and it is during one of these ad shoots that I met Riingo who liked my work and then and there promised me a role sometime soon.

 

Sholoana Bangaliana: As a successful model did you participate in any competition and get any titles and which all brands have you represented in your ad shoots?

Aryan: I have majorly done print shoots and also commercials for brands like Horlicks, Rose Valley etc. And along with all this I also have a job at Larsen & Toubro Ltd so I keep juggling all of these and try to manage all.

 

Sholoana Bangaliana: An actor who is busy with shoots and at the same time an engineer with Larsen & Toubro. You must be having a special mantra to manage your bosses happy in both the spheres.. Please share that with us..

Aryan: Well, honestly I too wish I had a mantra as right now I am having a tough time managing both and at times it feels  just like the stretch stunt on two motorbikes  that Ajay Devgan does so well in his movies. So, till now I am simply managing with the formula of “This is the last time”. But yes then again, I feel that given all these challenges, I am still employed as I do my work sincerely and do not give anyone a chance to complain.

To add to that I would also like to say that I am very thankful that I have this wonderful job with a fat pay package as this makes my life very secure and my struggle as a new comer in the glam world comparatively easy as I do not have to think about the struggle of survival and can only focus on my work. Acting was always a passion and a strong urge and I do not want to die with wishes un-fulfilled due to which I took up acting and am putting in all my efforts to master the art.

 

Sholoana Bangaliana: So what other wishes does Aryan want to fulfill so as not to die with regrets?

Aryan: Well as of now it is only acting and doing good roles and responsible roles that the audience will love and remember me for.

 

Sholoana Bangaliana: Please tell us something about your role in Sada Kalo Abcha and your experience of working with Riingo?

Aryan: I cannot disclose anything about the role, for that matter even my full name in the movie, as it is a thriller and every bit of it is a suspense and to add to that my character is being introduced in such a juncture that even a little bit of revelation can expose the entire plot, so I choose to keep mum.

My experience of working with Riingo was fantastic as he is very academically sound and understands the nuances of film making very well. Moreover from Riingo one should learn how to keep the spirits high as even with such a hectic schedule (the entire movie was shot just in fifteen days) that we had to follow during the shooting never did we seem him tired or slacking down. In fact he used to be like the energy transmitter for all of us. Riingo is also very passionate about his work and settles for nothing but just the best and most accurate shot.

 

Sholoana Bangaliana: How was Sayani as a co-actor?

Aryan: Not just Sayani, the entire team was just fantastic but yes Sayani and I shared a great camaraderie and every day after shoot all of us used to spend time together and I definitely had a great time working with the entire team.

 

Sholoana Bangaliana: What kind of homework do you do in order to hone your skills as an actor?

Aryan: Well, it is primarily a mind game and a mental preparation that is required. But yes along with that I do watch a lot of movies and I try to analyze how the actors are presenting themselves and what they are doing differently to stand out. Along with watching movies, the fact that I have done a lot of dance dramas with my mom helped a lot as I had picked up the expressions and gestures in those early years. Well, for that matter, there is an inherent actor within all of us and I guess this entire balancing act that I have been doing for the past six years keeping my superiors at work happy while pursuing my passion has indeed nurtured the actor in me.

 

Sholoana Bangaliana: What is your fitness regime?

Aryan: I am a fitness-freak and I enjoy hitting the gym and have been working out for the past 4-5 years now. I am also trained in Marshall Arts and I enjoy running too. Along with all this I also try to keep a tab on my food habits.

 

Sholoana Bangaliana: What social causes are you associated with or would like to support?

Aryan: Well, I have been associated with UNICEF for quite some time now and I am concerned that many people in our country do not even get the basic amenities. So I would like to try and help out in my own small ways.

 

Sholoana Bangaliana: Aryan’s favorite actress in Tollywood and Bollywood?

Aryan: I am spoilt for choices as such cannot pick out any one or two and this I am saying without being diplomatic at all.

 

Sholoana Bangaliana: Who is Aryan’s real life lady love?

Aryan: (After much coaxing) I have a beautiful wife, her name is Sonia and we have been married for the past two years. (Having said that Aryan also added “Dil to Abhi Bachha Hai”, a special message for all his female fans).

 

The conversation came to an end with Tollywood Hero Aryan D. Roy earnestly wishing that the audience likes his performance in the New Bangla Movie Sada Kalo Abcha and many other projects that he will be soon working in.

Tollywood Hero Aryan D. Roy

Sholoana Bangaliana wishes this multi-talented handsome hunk the very best for his future projects and we hope that after Sada Kalo Abcha his fans will soon see him playing the lead in the biggest hits of the industry.

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Enhanced by Zemanta

Rituparno Ghosh: For All Reasons and All Seasons, ছয় ঋতু , A special thought on his birthday

On Rituparno Ghosh’s 50th Birthday we have tried to refresh the memories of the master film maker by highlighting six of his movies that in a very subtle way are in sync with the mood of the six seasons that mother nature has bestowed upon us. The article thus goes as “Ritu’s 6 ritus”

ছয় ঋতু 

আজ ৩১শে আগস্ট, আমাদের মধ্যে থাকলে আজ ৫০ বছরে পা দিতেন ঋতুদা । কিন্তু তা তো আর হবার নয়, গত ৩০ শে মে ২০১৩, আমাদের সবার প্রিয় পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষ কলকাতা কে চোখের জলে ভাসিয়ে দিয়ে হারিয়ে গেলেন চিরকালের জন্যে। এখন বর্ষাকাল, আর কিছুদিন পরেই শরৎকালে ‘ মা ‘ আসছেন, সারা শহরে এখন সাজো সাজো রব কিন্তু এই শারদীয়ার আমেজেও কোথায় যেন এক বিষাদ মাখা সুর সারা শহরটাকে মৃদু ধাক্কা দিয়ে যাচ্ছে। এই সময়টা খুব প্রিয় ছিল ঋতুদার, খুব প্রয়োজন না হলে প্রাক-শারদীয়া এই সময়টায় কলকাতা ছেড়ে কোথাও যেতেন না ঋতুদা । বাড়িতে একা বসে লিখে ফেলতেন কবিতা কিম্বা কোন চিত্রনাট্য। গতকাল রাত থেকেই ভাবছিলাম ঋতুদাকে নিয়ে এমন কি লিখবো,যা আগে কেউ কোনদিন লেখেনি কিন্তু মাথায় আসছিলো না কারন ঋতুদার মৃত্যুর পরে মানুষটাকে নিয়ে এত বেশি লেখালেখি হচ্ছে যে তার কাজের কথা কিম্বা ব্যক্তিগত জগত নিয়ে কোনকিছুই আর কারো জানতে বাকি নেই। তাই আমি আজ বেছে নিয়েছি এমন এক বিষয়, যা সবার চোখের সামনে থেকেও হয়তো অনেকেরই অদেখা।

 

গ্রীষ্ম, বর্ষা, শরৎ, হেমন্ত, শীত, বসন্ত বঙ্গ প্রকৃতির এই ছয় ঋতু যেন ঋতুদার ছবির সম্ভারের সঙ্গে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে আছে। এই ছয় ঋতু যেমন আমাদের জীবনের সঙ্গে সংযুক্ত তেমনই ঋতুপর্ণর সিনেমাও আমাদের দৈনন্দিন জীবনের নানান স্বাদ,গন্ধ,রসের সঙ্গে মিলে মিশে একাকার হয়ে গেছে। ঋতুদার কাজের ব্যপ্তি অসীম তাই আমি আজ এমন টি ছবি বেছে নেবো, যে ছবি গুলি এক একটি ঋতুর flavour-এর সঙ্গে মিশে আছে। 

Rituparno ghosh movie dahan

দহন (Dahan) 1997 – The Summer ( গ্রীষ্ম ঋতু )

সুচিত্রা ভট্টাচার্য -র (Suchitra Bhattacharya) উপন্যাসের উপর ভিত্তি করে নির্মিত এই ছবিটি ঋতুদার দ্বিতীয় মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা। সামাজিক অবক্ষয়ের এক জ্বলন্ত দলিল এই ছবি। পুরো কাহিনী জুড়ে অসহনীয় তাপ ও জ্বালা। গ্রীষ্মের সমস্ত রুক্ষতা, সুস্কতা যেন ছবিটির রন্ধ্রে রন্ধ্রে মিশে আছে। দুই মহিলা পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্তার বিরুদ্ধে বিদ্রোহিণী হয়ে ওঠে কিন্তু তাদের পুরুষ সঙ্গীরা তাদের পাশ থেকে সরে যায়। নারী শক্তির তাপে শেষ পর্যন্ত জ্বলে যায় সব অবিচার। ‘দহনে’ অভিনয় করে একই বছরে যুগ্ম ভাবে জাতীয় পুরস্কার (National Award) পেয়েছিলেন ঋতুপর্ণা সে্নগুপ্ত (Rituparna Sengupta) এবং ইন্দ্রাণী হালদার (Indrani Haldar)।

 

Raincoat  (Hindi) 2004 – Rainy (বর্ষা ঋতু ) aishwarya rai raincoat

মথুরা নগরপতি, কাহে তুম গকুল যাও?” 

ঋতুদার লেখা, দেবজ্যোতি মিশ্রের সুরে, শুভা মুদ্গলের (Subha Mudgal) গাওয়া এই গান মুম্বইকেও মাতিয়ে তুলেছিল । ঋতুদার প্রথম হিন্দি ছবির পটভূমি বৃষ্টিস্নাত কলকাতা। Ajay Devgan এবং Aiswariya Rai Bacchan -এর অসামান্য অভিনয় এই Hindi ছবিটি কে এক অন্য মাত্রা দিয়েছিল। প্রথম হিন্দি ছবিতেই ঋতুপর্ণ ঘোষ ‘সেরা গল্পের’ এবং ‘শ্রেষ্ঠ হিন্দি সিনেমা’ -র জন্যে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন। এই নিম্ন মধ্যবিত্ত প্রেমের কাহিনী সমগ্র দেশের হৃদয় কে দোলা দিয়ে গিয়েছিল। অজয় দেবগনের দুর্দান্ত অভিনয় এই ছবির এই ছবির অন্যতম সম্পদ।

 

উৎসব (Utsab) 2000 – Autumn ( শরৎ ঋতু ) rituparno ghosh utsab poster

শরৎ মানেই দুর্গা পুজা। সারা বাংলা মেতে ওঠে শারদ আনন্দে । Rituparno Ghosh-এর ছবি ‘উৎসব’ -এর পটভূমিকা হচ্ছে বাঙ্গালির সেই সাধের শারদ উৎসব। এক বাঙালি বনেদি পরিবারিক পুজা কে কেন্দ্র করে বিভিন্ন সদস্যদের নানান ঘাত প্রতিঘাত নিয়ে এই ছবি জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিল। সমগ্র ছবি জুড়ে শারদ উৎসবের আবহাওয়া, এই ছবিকে অনন্য করে তুলেছে। জনপ্রিয় বাণিজ্যিক ছবির নায়ক  Prosenjit Chatterjee কে এই ছবি এক অন্য মাত্রা এনে দিয়েছিলো দর্শক মহলে। মমতা শঙ্কর-ও দুর্দান্ত অভিনয় করেছিলেন এই ছবিতে। এখানে সারা ছবি জুড়ে শুধু দুর্গা পুজা এবং সেটাই এই ছবি কে ‘শরৎ’ মাখা ছবি করে তোলে। তাই শরৎ বলতেই আমার মনে পড়ে যায় ঋতুদার ‘উৎসব’ ।

 

অসুখ (Ashukh) 1999 – The Winter (শীত ঋতু ) rituparno ghosh film asookh

ঋতুদার তৃতীয় মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘অসুখ’ আসলে এক মনস্তাতিক জটিল গল্প, যে গল্পের কেন্দ্রে আছেন এক অভিনেত্রী। সেই নায়িকার সমস্ত সম্পর্ক গুলি কেমন যেন কুঁকড়ে যাচ্ছে। সমগ্র ছবি জুড়ে এক প্রবল শৈত্য বিরাজ করেছে। শীত মানে ঠাণ্ডায় মানুষের কুঁকড়ে যাওয়া । শৈত্য শুধু শরীরে আসেনা, মাঝে মধ্যে মনেও আসে। তেমনই এক mentally frigid হয়ে যাওয়া মানুষের কুঁকড়ে যাওয়া জীবনের ইতিকথা শুনিয়েছেন ঋতুদা অসুখে। অসুখ-এর নায়িকা দেবশ্রী রায় (Debosree Roy) নিজেকে ছাপিয়ে গিয়ে এমন অভিনয় করেছিলেন অসুখে, যা তাকে আন্তর্জাতিক খ্যাতি এনে দিয়েছিলো। ঋতুপর্ণ ঘোষের ছবিতে এই প্রথম তথা শেষবার অভিনয় করেছিলেন Soumitra Chattopadhyay এবং “অসুখ”-এ প্রথমবার অভিনয় করেছিলেন জনপ্রিয় গায়ক শিলাজিৎ মজুমদার, যিনি আজ নিজের গায়কির সঙ্গে সঙ্গে অভিনেতা রূপেও বেশ সফল। যথারীতি অসুখ ১৯৯৯ সালে ‘শ্রেষ্ঠ’ বাংলা সিনেমা হিসাবে জাতীয় পুরস্কার লাভ করে।

 

The Last Lear (English) – 2007 – হেমন্ত ঋতু amitabh bachhan last lear

ঋতুদার প্রথম English ছবি The Last Lear ছবি জুড়ে পাতা ঝরা হেমন্ত মরসুমের কথা বলা হয়। এক বিশাল বৃক্ষের শুকিয়ে যাওয়ার গল্পকে সিনেমার ভাষায় সাজিয়েছিলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ। Amitabh Bacchan-এর অবিস্মরণীয় অভিনয় এই ছবিকে আন্তর্জাতিক মহলে বিপুল খ্যাতি এনে দিয়েছিলো। ইংরাজি ভাষায় ছবি বলে ভারতে খুব একটা বেশি সাফল্য না পেলেও The Last Lear ছবি হিসাবে উচ্চমানের, সেটা শিক্ষিত দর্শক মহল স্বীকার করে নিয়েছিলো। একজন প্রতিভাশালী নটের নিজের বিস্তৃতি কে আস্তে আস্তে গুটিয়ে নেওয়ার মর্মান্তিক কাহিনীকে ঋতুদা ভারি সুন্দররূপে বর্ণনা করেছিলেন চিত্রনাট্যের বাঁকে বাঁকে। হেমন্ত মরসুম এলেই আমার The Last Lear -এর কথা মনে পড়ে যায়।

 

খেলা (Khela) – 2008 – বসন্ত ঋতু prosenjit chatterjee khela

ঋতুদার খুব কম ছবি আনন্দের গান গায়,খুশির কথা বলে। তাই ‘খেলা’ ছবি টি দেখে আমরা সবাই ছেলেমানুষের মতন আনন্দ পেয়েছি, হেসেছি, কেঁদেছি। নায়ক রাজার সঙ্গে আমরাও অভিরূপ কে নিয়ে ‘নালক’ ছবির shoot করতে জঙ্গলে পৌঁছে যাই। অসময়ের বৃষ্টিতে অকারন ভিজতে ভালো লাগে। ছবির শেষে যখন নায়ক Prosenjit যখন নায়িকা Manisha Koirala-র মধ্যে আবার মিল হয়ে যায় যখন সমস্ত দর্শকের মনে ওঠে আনন্দের জোয়ার। Anjan Dutt-র ভাষা ধার করে বলে উঠতে ইচ্ছে করে ফুল ফুটুক না ফুটুক আজ বসন্ত !!!

 

আজ ঋতুদার জন্মদিনে আমার এই ছোট্ট উপহার আশা রাখলাম ঋতুদার পছন্দ হবে। না জন্ম বার্ষিকী বলতে পারছি না, আজ আমার কাছে ঋতুপর্ণ ঘোষের জন্মদিন

By:
Sanjib BanerjiSanjeeb Banerji takes a keen interest in both Old and Contemporary/modern Bengali literature and cinema and have written several short stories for Bengali Little magazines. He also runs a little magazine in Bangla, named – Haat Nispish, which has completed its 6th consecutive year in the last Kolkata International Book Fair. Being the eldest grandson of Late Sukumar Bandopadhaya, who was the owner of HNC Productions and an eminent film producer cum distributor of his time (made platinum blockbusters with Uttam Kumar, like “Prithibi Aamarey Chaaye”, “Indrani” and several others), Sanjib always nurtured an inherent aspiration of making it big and worthy in the reel arena. He has already written few screenplays for ETV BANGLA.

Image Credits: Google Images

 

Enhanced by Zemanta