Tag: Cricket

Lux Cozi’s Meet and Greet with Kolkata Knight Riders

Kolkata-Knight-Riders-team

Lux Cozi had recently organised a Meet and Greet event with the distributors and channel partners of Lux Cozi at The Spring Club. The marquee players of Kolkata Knight Riders felicitated the best sellers of 2015-16 for their outstanding performance. Stars of the Kolkata Knight Riders players who attended the event were Gautam Gambhir, Yusuf Pathan, Robin Uthappa, Umesh Yadav, Shakib Al Hasan and Andre Russell.

Pradip Kumar Todi, Managing Director, Lux Industries mentioned the fact the being the official partner of such a popular team will only increase the brand value. He also highlighted on the fact that the company’s association with IPL has been extremely satisfying.

Kolkata-Knight-Riders

To strengthen the brand image and recall in the minds of our consumers, Lux Industries has always tried to stay in touch with things that directly appeals to the masses. Associating ourselves with IPL is also a step in that direction.

Lux Industries is the official sponsor and merchandise partner of Kolkata Knight Riders.

Priyanka Dutta

Connect with us on Facebook at: https://www.facebook.com/sholoanabangaliana?ref=hl

Our You Tube Channel: https://www.youtube.com/channel/UC2nKhJo7Qd_riZIKxRO_RoA

Our Twitter Handle: @Sholoana1

Google+ ID: +Sholoana

Aschorjyo Prodip (2013): Movie Review, Premiere pics and Trailer; Watch It to Believe It

Aschorjyo Prodip (2013)

A batsman who elegantly scores a double hundred in his debut match and thereafter scores a decent half century in his second match, then also some negative minded critics would say that his maiden double century was only a fluke. However, ones, who are the true observers of the game, would detect his flaws and speak about those in order to make him a better player in the years to come. Despite being an ardent fan of Director Anik Dutta, I am here to write a criticism of Aschorjyo Prodip as I intend to be transparent towards that person, whom I respect.

Apart from the usages of fantabulous dialogues, Aschorjyo Prodip doesn’t fall anywhere even close to the territory marked by Anik’s debut feature film ‘Bhooter Bhobisyot’. But still the glimpses of a classy storyteller peeped every now and then throughout this black comedy. After witnessing the last innings of Sachin Tendulkar, we mustn’t have any doubts in admitting that ‘form’ is temporary whereas ‘class’ is permanent. After the stupendous double century, which was scored by ‘Bhooter Bhobisyot’, Anik Dutta’s 2nd film ‘Aschorjyo Prodip’ now scores a decent half century but this is not the ultimate parameter of judging a rare talent like Anik Dutta, who is perhaps the best satirical dialogue developer after Satyajit Ray. So, let’s wait for another big innings from this crafty storyteller in the days to come.

A decent half century after the stupendous double century doesn’t make Anik Dutta an ordinary filmmaker whatsoever. Let’s accept Anik Dutta’s Aschorjyo Prodeep (2013) with the same positive spirit with which we have earlier accepted his Bhooter Bhobisyot.

এই সমালোচনার শুরুতেই একটা কথা পরিস্কার করে লিখে দেওয়া যুক্তিযুক্ত বলে মনে করলাম যে কোন দর্শক যদি ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ ছবিতে ‘ ভুতের ভবিষ্যৎ’ -এর খোঁজ করেন তাহলে তাকে যথেষ্ট পরিমানে হতাশ হয়ে, বিষণ্ণ হৃদয়ে প্রেক্ষাগৃহ থেকে বেরোতে হবে। ভালো মন্দের তর্কে না গিয়ে এটাই বলি যে ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ অনীক দত্তের আগের ছবির থেকে সম্পূর্ণরূপে ভিন্ন। এই ছবির মাধ্যমে পরিচালক অনীক দত্ত এমন এক সমাজের প্রতিচ্ছবি তুলে ধরতে চেয়েছেন, যে সমাজে সম্মান অর্থের বিনিময়ে কিনতে পাওয়া যায়। যে সমাজে ভাব, ভালবাসা, বিবেক সবই আজ পণ্য সামগ্রীর মতন বাজারে বিক্রি হয়। অনীকের ‘ভুতের ভবিষ্যৎ’ ছবিতে ভুত-দের রূপক রূপে তুলে ধরে বলা হয়েছিলো বর্তমানের সঙ্গে যুদ্ধে অতীতের অস্তিত্ব সঙ্কটের ইতিবৃত্তান্ত এবং ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ ছবিতে তুলে ধরা হয়েছে বিশ্বায়নের করালগ্রাসে লুপ্তপ্রায় মধ্যবিত্ত মূল্যবোধের করুন কাহিনী।

মধ্যবিত্ত সেলস অফিসর অনিলবাবু নিজের পাড়ার রাস্তায় কুড়িয়ে পান সেই আলাদিনের আশ্চর্য প্রদীপ এবং সেটিকে ঘষার সঙ্গে সঙ্গে অনিলবাবুর সামনে এসে উপস্থিত হয় প্রদীপের দৈত্য, যার চলিত বাংলায় অনিলবাবু নামকরন করে ফেললেন ‘ প্রদীপ দত্ত ‘। তারপর প্রদীপ দত্তের জাদুতে অনিলবাবু পেয়ে গেলেন, স্বপ্নের গাড়ি, স্বপ্নের বাড়ি কিন্তু আঁতকে উঠতে হল স্বপ্নের নারীতে পৌঁছেই … কেন ? গল্পটা বলে দিলে আপনার আর সিনেমাটা দেখতে ইচ্ছে করবেনা তাই শেষের ধাক্কাটুকু নাহয় বড় পর্দার জন্যেই তোলা থাকলো। টিকিট কেটে, সিনেমা হলে গিয়ে দেখেই আসুন বাংলা ছবির জগতের কয়েকজন প্রতিভাশালী নবীন -প্রবীন অভিনেতা এবং অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের সমন্বয়ে নির্মিত অনীক দত্তের দ্বিতীয় বায়স্কোপ ‘আশ্চর্য প্রদীপ’। এই ছবিতে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় (Saswata Chatterjee) দারুন অভিনয় করেছেন কিন্তু ‘মেঘে ঢাকা তারা’-র (Meghe Dhaka Tara 2013) নীলকণ্ঠ বাগচি অথবা ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’ -এর ‘হাত-কাটা কার্তিকের পৌছতেও পারেনি ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ -এর ‘অনীল’। বরং প্রদীপের দৈত্যের ভূমিকায় রজতাভ দত্ত (Rajatava Dutta) একদম জমিয়ে দিয়েছেন। মশলাদার বাণিজ্যিক ছবিতে ভিলেন সাজতে সাজতে ক্লান্ত রজতাভ অনায়াস দক্ষ্যতায় উপস্থাপিত করেছেন এই আপাত মজাদার অথচ সুক্ষ তাৎপর্যময় চরিত্রটিকে। ছোট্ট ছোট্ট চরিত্রে পরান বন্দ্যোপাধ্যায় (Paran Bandopadhyay), মনোজ মিত্র (Manoj Mitra), সুমিত সমাদ্দার (Sumit Samaddar), মীর (Mir Afsar Ali), খরাজ মুখোপাধ্যায় (Kharaj Mukherjee) সহ  সব অভিনেতাই দর্শকদের সাধ্যমতন হাসিয়েছেন। Sexy Bollywood Heroine মালা মালের চরিত্রে মুমতাজ সরকারকে দারুন মানিয়েছে এবং অনীলের স্ত্রীর চরিত্রে শ্রীলেখা মিত্র-ও (Sreelekha Mitra)  খুব ভালো অভিনয় করেছেন। অভীক মুখোপাধ্যায়ের (Aveek Mukhopadhyay) চিত্রগ্রহণ এবং অর্ঘ্য কমল মিত্র-র (Arghya Kamal Mitra) সম্পাদনা যথাযথ। রাজা নারায়ণ দেবের (Raja Narayan Deb) সংগীত পরিচালনা মোটামুটি কিন্তু অনীক দত্তের লেখা গানের কথাগুলি কিন্তু জম্পেশ। অনেক বছর পরে অমিতকুমার (Amit Kumar) কে বাংলা ছবিতে তার বাবা কিশোরকুমারের (Kishore Kumar) গান গাইতে শোনা গেল, এও এক বড় প্রাপ্তি।

তবে ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’ যেমন পারিবারিক বিনোদনমূলক সিনেমা রূপে সাংস্কৃতিক স্বীকৃতি লাভ করেছে, ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ কিন্তু সেই তৈরি করে দেওয়া রাস্তায় হাঁটতে আসেনি। বরং লেখা ভালো অনীক দত্ত এবার নিজেই নিজের পূর্ববর্তী পথ বর্জন করে, খানিক অন্য রাস্তায় হেঁটেছেন। যদিও এই পথ পূর্ববর্তী পথের মতন মসৃণ হয়, তাই এবার মাঝে মাঝেই চিত্রনাট্যের হাস্যরস হোঁচট খেয়েছে। হাসতে হাসতে দর্শক ভেবেছেন, ভাবতে ভাবতে হেসেছেন। কিন্তু হাসতে হাসতে হঠাৎ কেঁদে ফেলতে কি সবাই রাজি হবেন? এই ছোট্ট হ্যাঁ কিম্বা না-এর সরু দড়ির উপরই ঝুলছে অনীক দত্তের দ্বিতীয় বাংলা ছবির ভবিষ্যৎ।

আমার ব্যক্তিগত মত যদি এই ক্ষেত্রে বিচার্য হয় তবে অনীক দত্ত এই দ্বিতীয় ছবির বিষয়ের উৎকর্ষতাকে আমি নম্বর দেব ৫/১০। চিত্রনাট্যকে দেব – ৫/১০,  সংলাপকে দেব – ৮/১০ এবং কলাকুশলীদের অভিনয়কে দেব –  ৯/১০।  সংলাপ রচয়িতা অনীক দত্ত-র ব্যক্তিগত পারদর্শিতাকে স্বতন্ত্র রাখলে ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ কে ৫০% বেশি নম্বর দিতে আমি অপারগ। অনীক দত্তের অন্ধ গুণগ্রাহীদের শুনতে খারাপ লাগলেও, এই কথা স্বীকার করে নিতেই হবে ‘আশ্চর্য প্রদীপ’ বিষয়ের উৎকর্ষতা তথা চিত্রনাট্যের চমক, কোন বিভাগেই  ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’ -কে টক্কর দিতে পারেনি। আসল কথা হচ্ছে ক্রিকেটের সচিনের মতনই অনীক দত্তের প্রতিযোগিতা অন্য কোন পরিচালকের সঙ্গে নয়, তার নিজের সঙ্গেই। জীবনের প্রথম ম্যাচেই যে ব্যাটসম্যান মাঠে নেমে ‘দুশো’ রান করে বসেন, তিনি যদি ঠিক পরের ম্যাচটাতেই ‘পঞ্চাশ’ রান করেন তাহলে সবাই তো বলবেই ‘ না এবারটা ঠিক জমল না … দেখা যাক পরের ম্যাচে অন্তত একশো রান করতে পারে কিনা ? হয়ত অনীক দার প্রতি কিছুটা অন্যায়ই করে ফেলছি আমরা কিন্তু সত্যজিৎ পরবর্তী যুগে বাংলা সিনেমায় এমন চিত্তাকর্ষক হাস্যরসাত্মক সংলাপ লেখককে এহেন শ্রেষ্ঠতার মাপকাঠির বিচারে তো পড়তেই হবে? এটাই যে তার নিয়তি। তৃতীয় ছবির জন্যে এখন থেকেই অনীকদাকে আমার শুভেচ্ছা জানিয়ে সর্বদিক বিচার করে ‘আশ্চর্য প্রদীপ’কে ষোলোআনা বাঙ্গালিয়ানার পক্ষ্য থেকে আমি 5/10 দিলাম।

 


Ashchorjyo Prodeep Official Trailer (You Tube)

Movie Review By:

SanjibSanjib Banerji takes a keen interest in both Old and Contemporary/modern Bengali literature and cinema and have written several short stories for Bengali Little magazines. He also runs a little magazine in Bangla, named – Haat Nispish, which has completed its 6th consecutive year in the last Kolkata International Book Fair. Being the eldest grandson of Late Sukumar Bandopadhaya, who was the owner of HNC Productions and an eminent film producer cum distributor of his time (made platinum blockbusters with Uttam Kumar, like “Prithibi Aamarey Chaaye”, “Indrani” and several others), Sanjib always nurtured an inherent aspiration of making it big and worthy in the reel arena. He has already written few screenplays for ETV BANGLA.
Sanjib can be reached at sanjib@sholoanabangaliana.com

 

Premiere Pics: Pratik Banerjee

 

 

 

Enhanced by Zemanta

India team Cricketer Manoj Tewari and Laxmi Ratan Shukla and Tollywood hero Abir Chatterjee felicitated the CAB Junior Cricket Trophy ‘Under-17’ champions of 2013

Bengal Cricket

Cricket is often aptly called the most favorite sport in India as most of the population in this country has an inherent affiliation to this game. Relentless in its pursuit to identify and highlight hidden prodigies in this game, the Mainland-Sambaran Cricket Academy in Kolkata has made a distinct mark as a cradle for budding cricketers. On 2nd of August the academy felicitated the champions of 2013 CAB Junior Cricket Trophy ‘Under-17’ at Mainland China Restaurant at Gurusaday Dutta Road, Kolkata. The event was marked with the presence of former National Selector Sambaran Banerjee, Anjan Chatterjee, Chairman and Managing Director, Speciality Restaurants Limited, Cricketer Laxmi Ratan Shukla and Manoj Tewari, actor Abir Chatterjee and former footballer and football coach P.K. Banerjee.

Bollywood hero Abir Chatterjee

India team Cricketer Sourav Ganguly, Kolkata’s very own ‘Dada’ was supposed to be present at the event but ultimately could not attend the ceremony due to some obvious and personal reasons. However, the sorrow that Dada’s absence caused was soon warded off when the budding cricketers were felicitated with cricket bats by Anjan Chatterjee. The event provided a unique opportunity to see a number of budding cricketers, probably the bests of the future, in a single frame. The already jovial mood of the event was even elevated to a higher level with Sambaran Banerjee recognizing the achievement of the youngsters individually.

Indian team Cricketer

 Cricket is a gentleman’s game and Mainland-Sambaran Cricket Academy has been trying hard to take this game to all levels of society. Currently hundreds of children from different age groups receive regular training in cricket from coaches at the academy. India team Cricketer Laxmi Ratan Shukla remarked that Mainland-Sambaran Cricket Academy’s endeavor to make use of the latest technology like bowling machines to make training process easier and more realistic would help young cricketers a lot. Laxmi Ratan himself has been the captain of the Bengal team and has played in the Indian Premier League and the Indian national cricket team.

Manoj Tewari, another promising cricketer from Kolkata, interacted directly with the champions and even advised to aim for playing in Ranji Trophy or on international level. Manoj, who has been the instrument behind many of Bengal’s victories in national level tournaments, is one of the most successful cricketers of present generation.

CAB Junior Cricket Trophy ‘Under-17’ winners

P.K. Banerjee, a man in his eighties but whose charm matches that of a teenager, inspired the champions in his signature style. His presence alone was enough to inspire everyone but he chose not to remain silent and made a speech that can be the motto of every trainee sportsperson. Abir Chatterjee, one of the most successful actors of the Bengali film industry stated that though he was not a cricketer by profession, yet he could understand the joy of victory as he had been a part of many cricket teams in the past.

The felicitation ceremony of the young champions from the Mainland-Sambaran Cricket Academy has recognized the budding talents in cricket and is likely to inspire many more for a better performance. Those who were present at the event witnessed a unique ceremony from all respect.

Enhanced by Zemanta